হেপাটাইটিসে আক্রান্ত হলে কোথায় চিকিৎসা নিবেন?

হেপাটাইটিস নামটির সাথে আমরা কম বেশি সবাই পরিচিত। হেপাটাইটিসের  কথা শুনলেই বলি টিকা নিতে হবে অথবা আক্রন্ত হলে নিতে হবে বেশ দীর্ঘ মেয়াদী ট্রিটমেন্ট । বিশ্ব জুড়ে বেড়েই চলছে হেপাটাইটিসে আক্রান্তের সংখ্যা। এক পরিসংখ্যানে দেখা যায়, প্রতিবছর প্রায় ৫০০ মিলিয়ন মানুষ হেপাটাইটিস বি ও সি ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছে। অবাক হলেও সত্য বিশ্বে প্রতি ১২ জন মানুষের মধ্যে একজন হেপাটাইটিসে আক্রান্ত হলেও ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ মানুষই জানে যে সে নিজে আক্রান্ত।
সুস্থ অবস্থায় টিকা নিয়ে হেপাটাইটিসে আক্রান্ত হওয়া প্রতিরোধ করা যায় খুব সহজেই। কিন্তু আক্রন্ত হয়ে গেলে অ্যালোপ্যাথি ডাক্তাররা আপনাকে দেবে দীর্ঘ মেয়াদী চিকিৎসা তাও আবার ভাল হবেন কি হবেন না তা প্রায় অনিশ্চিত। তার পরও এগুলি নিয়ে কত সেমিনার, কত আলোচনা সভা, আরো যে কত কি !!! কারণ কি জানেন ? এর পেছনে রয়েছে পুজিবাদী কোম্পানি গুলোর প্রোডাক্ট গুলোর বিজ্ঞাপন। আর আপনরা এ গুলি দেখতে দেখতেই  বড় হয়েছেন।
কোথায় চিকিৎসা নিবেন ?
আপনি হয়ত অনেক দিন যাবত হেপাটাইটিসে আক্রান্ত হয়ে চিকিত্সা নিয়ে আসছেন। আর মানুষিক ভাবে এ সমস্যাটা নিয়ে বেশ বিপর্যস্থও বটে। আপনি কি জানেন এ সমস্যার সমাধান হতে ৩-৪ মাসের বেশি সময় লাগে না। তাও আবার চির দিনের জন্য আরোগ্য হবেন হেপাটাইটিস থেকে। কথা গুলি ম্যাজিকের মত লাগছে হয়ত আপনার কাছে !! বিষয়টা এমনই, বিজ্ঞাপনের ছটায় আমরা আজ আসল নকল বুঝতেও ভুল করি। পৃথিবীর সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য চিকিৎসা হলো হোমিওপ্যাথি। একজন ভালো হোমিওপ্যাথের সাথে কথা বলুন এবং চিকিৎসা নিন। দেখবেন আপনার ধারণা পরিবর্তন হয়ে গেছে।

Comments

হেপাটাইটিসে আক্রান্ত হলে কোথায় চিকিৎসা নিবেন? — 1 Comment

  1. হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা সব চেয়ে ভাল, আমিও বিলিভ করি,কিন্ত, সাধারণ একটা রোগের জন্য ৬ মাস এর ও বেশী ওষুধ সেবন করতে হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *